এবার ষাটের নিচের বয়সের বিধবারাও লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্পের সুবিধা পাবেন। এতদিন যাঁরা রাজ্য সরকারের দেওয়া বিধবা ভাতার সুবিধা পেতেন, তাঁরা লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের টাকা পেতেন না। কিন্তু এবার থেকে বিধবা ভাতার পাশাপাশি লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের আর্থিক সুবিধাও পাবেন পশ্চিমবঙ্গের বিধবারা। রাজ্যের মহিলাদের আর্থিক সুবিধা দিতে বুধবার নবান্নে মন্ত্রিসভার বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি এদিন বৈঠকে ২৬১টি নতুন পদ তৈরি করাও হয়েছে, নেওয়া হয়েছে একাধিক সিদ্ধান্ত। মন্ত্রিসভার বৈঠকে এদিন আরও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, এবার থেকে দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে এসে মানুষ যে কোনও অভিযোগ জানাতে পারবেন। অভিযোগ পাওয়ার পর দ্রুত তদন্ত করে অভিযোগকারীকে তার জবাব দিতেই হবে। জানানো হয়েছে, ২৭টি প্রকল্পের বাইরে যে কোনও ধরনের অভিযোগ জমা দিতে পারবেন ক্যাম্পে। তবে এটাও স্পষ্ট করে দেওয়া হয়েছে, এর জন্য দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে আলাদা করে কাউন্টার খুলতে হবে। অভিযোগ জমা নেওয়ার পর কাউন্টার থেকে প্রাপ্তি স্বীকারের রশিদ অভিযোগকারীর হাতে তুলে দেওয়া হবে। জমা-পড়া প্রতিটি অভিযোগের তদন্ত করা হবে এবং তারপর তা জানাতে হবে অভিযোগকারীকে। রাজ্যের মুখ্যসচিব প্রতিটি জেলার জেলাশাসকদের এই বিষয়ে নির্দেশ দিয়েছেন।
উল্লেখ্য, রাজ্যের দুঃস্থ এবং অসহায় মহিলাদের আর্থিক সুবিধা দেওয়ার উদ্দেশ্যে চলতি বছরেই লক্ষ্মীর ভাণ্ডার স্কিম চালু করেছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে চালু হওয়া এই যোজনায় প্রত্যেক মাসে মহিলাদের ৫০০ এবং ১০০০ টাকা আর্থিক সুবিধা দেওয়া হয়। লক্ষ্মীর ভাণ্ডারের টাকা মহিলাদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে সরসারি পাঠানো হয়।